ভ্যাট নিবন্ধনের আওতায় এসেছে ২ লাখ ৮২ হাজার প্রতিষ্ঠান

AatraiAatrai
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:৪৫ AM, ২৫ অগাস্ট ২০২১

আমাদের আত্রাই ডেস্ক:

মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) নিবন্ধনের আওতায় এসেছে ২ লাখ ৮২ হাজার ২০২টি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান। ২০১৯-২০ অর্থবছরের তুলনায় এর সংখ্যা বেড়েছে এক লাখ ১৫ হাজার ৩৩টি। গত অর্থবছরে এক লাখ ৬৭ হাজার ১৬৯টি প্রতিষ্ঠান ভ্যাট নিবন্ধন নিয়েছিল। শতাংশ হিসাবে এই বৃদ্ধির হার ৬৮.৮১ শতাংশ।

মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) পরিসংখ্যান বিভাগ সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

এ বিষয়ে এনবিআরের পরিচালক (জনসংযোগ) সৈয়দ এ মু’মেন বলেন, ভ্যাটের আওতা বৃদ্ধি করতে এনবিআর ভ্যাট অনলাইন প্রজেক্ট হাতে নিয়েছিল। যার আওতায় অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধন চালু করে। এর পাশাপাশি মাঠ পর্যায়ে জরিপ চালিয়েছে। যার ফলাফল হিসেবে নিবন্ধন করা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বেড়েছে।

এনবিআর থেকে পাওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, সারাদেশে ১১টি ভ্যাট কমিশনারেটের মধ্যে গত বছর সবচেয়ে বেশি নিবন্ধন হয়েছে ঢাকা দক্ষিণ কাস্টমস, এক্সাইজ অ্যান্ড ভ্যাট কমিশনারেটে। সেখানে ২০২০-২১ অর্থবছরে নতুন নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৮ হাজার ৯২টি।

ভ্যাট নিবন্ধন কি?

ভ্যাট নিবন্ধন এবং তালিকাভুক্তি নিবন্ধন একটি দেশের জন্য প্রতিটি ব্যবসায় একটি অদ্বিতীয় বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নম্বর (ব্যবসা পরিচিতি নম্বর) থাকে। যাকে বিন নম্বরও বলা হয়। এই নম্বরটি পেতে হলে নিবন্ধন প্রয়োজন। যা ব্যবহার করে একটি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন পণ্য ও সেবা বিক্রির বিপরীতে সংগ্রহ করা ভ্যাট আদায় করে সরকারি কোষাগারে জমা দেয়।

এনবিআরের এক আদেশে বলা হয়, মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন ২০১২ এবং মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক বিধিমালা ২০১৬ অনুসারে ভ্যাট নিবন্ধিত ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানগুলোকে মাস শেষ হওয়ার অনধিক ১৫ দিনের মধ্যে ভ্যাট রিটার্ন দাখিলের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। অন্যথায় সুদ ও জরিমানা আরোপের বিধান রয়েছে।

সাধারণত ব্যবসার বাৎসরিক টার্নওভার ৩০ লাখ টাকার নিচে হয়, তাহলে ওই প্রতিষ্ঠানকে ভ্যাট নিবন্ধন নিতে হয় না। যদি ৩০ লাখ ১ টাকা থেকে ৮০ লাখ টাকার মধ্যে হয় তাহলে ওই প্রতিষ্ঠানকে ৩ শতাংশ ভ্যাট দিতে হবে। আর যদি ৮০ লাখ টাকার বেশি হয় তাহলে তাকে ১৫ শতাংশ ভ্যাট দিতে হবে।

তথ্য সূত্র: ঢাকা পোস্ট

 204 total views,  2 views today

আপনার মতামত লিখুন :